Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

 

অত্র অফিস থেকে প্রদত্ত সেবা প্রদান সমূহের তালিকা :

 

১। নামজারীর মাধ্যমে রেকর্ড হালকরণ।

২। ভূমিহীনদের মাঝে কৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদান।

৩। অর্পিত সম্মত্তির লীজ নবায়ন।

৪। রেকর্ডের করণিক ভূল সংশোধন।

৫। জলমহাল, হাটবাজার ব্যবস্থাপনা।

৬। ভূমি উন্নয়ন কর নির্ধারণ ও আদায় কার্যক্রম।

৭। রেন্ট সার্টিফিকেট মামলা পরিচালনা ও নিষ্পত্তি।

৮। উচ্ছেদ মামলার নথি প্রস্তুত করণ।

৯। আশ্রায়ণ/  আদর্শগ্রাম/ গুচ্ছগ্রাম সমূহের স্থান নির্বাচন।

১০। সরকারী খাস সম্পত্তি তদারকিকরণ।

 

নামজারীর আবেদনে সংযুক্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র :

 

১। ১০/- (দশ) টাকার কোর্ট ফি সহ মূল আবেদন ফরম।

২। আবেদনকারীর এক কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি (একাধিক ব্যক্তির ক্ষেত্রে প্রত্যোকের)

৩। জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।

৪। আবেদনকারীর মোবাইল নম্বর।

৫। খতিয়ানের ফটোকপি/ সার্টিফাইড কপি।

৬। হাল সন পর্যন্ত ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধের কপি।

৭। হালসন পর্যন্ত ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধের কপি।

৮। সর্বশেষ জরিপের পর থেকে ভায়া/ পিট দলিলের সার্টিফাইড কপি/ ফটোকপি।

৯। উত্তরাধিকার সূত্রে জমির মালিকানা পেয়ে থাকলে তিন মাসের মধ্যে ইস্যুকৃত ওয়ারিশ     

      সনদ।

১০। আদালতের  রায়ের ডিক্রিমূলে জমি পেয়ে থাকলে উক্ত রায়ের সার্টিফাইড/ ফটোকপি (ইনফরমেশন স্লিপসহ) শুনানী গ্রহণকালে দাখিলকৃত কাগজের মূলকপি অবশ্যই দেখাতে হবে এবং নির্দিষ্ট সময়ে ইউনিয়ন ভূমিসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে হবে এবং নির্দিষ্ট সময়ে ইউনিয়ন ভূমি অফিসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে হবে।

 

অর্পিত সম্মত্তি (খ-তপশীল) এর নামজারী ও ভূমি উন্নয়ন কর প্রদান বিষয়ে করণীয়

 

১। আবেদনপত্র আবশ্যিকভাবে সহকারী  কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

২। আবেদনপত্রের সাথে সমূদয় কাগজপত্রের দুই সেট  জমা দিতে হবে।

৩। আবেদনপত্রের ভিত্তিতে মিস কেস রুজু করে শুনানী গ্রহণ অন্তে মামলাল আদেশ প্রদান করা হবে।

৪। শুনানীর সময় অবশ্যই সকল মূল দলিল উপস্থাপন করতে হবে।

৫। উক্ত মামলা নিষ্পত্তি করে নামজারীর জন্য কোন পূন:তদন্ত বা কাগজপত্র যাচাই বাছাই করা হবে না। বিধায় নির্ধারিত সময়ের অতিরিক্ত সময় ও অর্থ খরচের প্রয়োজনীয়তা নেই।

৬। সেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে প্রতিটি ধাপেই সরকারী নির্ধারিত মূল্যের বিপরীতে সেবা গ্রহীতাকে সরকারী রশিদ সরবরাহ করতে হবে।

*** স্বাক্ষর সম্বলিত আবেদনপত্র।

*** আবেদনকারীর ছবি এক কপি।

*** নির্ধারিত কোর্ট  ফি।

*** এস,এ/ আর,এস খতিয়ানের কপি।

*** রেকর্ড হতে সর্বশেষ মালিকানা প্রমাণের ধারাবাহিক দলিলসমূহ।

*** ওয়ারিশ সনদ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)

*** জাতীয় পরিচয় পত্রের অনুলিপি।

*** ভোটার তালিকা/ প্রাসংগিক প্রমাণসমূহ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)

*** গেজেটেডের অনুলিপি।

*** ইতোপূর্বে আদালতের আদেশ/ ডিক্রির অনুলিপিসমূহ।

*** ২১/০৫/২০১৫ খ্রি: তারিখের পূর্বে ‌খ তপশীলের অন্তভূক্ত জমির ভূমি উন্নয়ন কর প্রদানের আবেদন করতে হবে, অন্যথায় তপশীল ভূক্ত  জমি খাসে পরিণত হবে।

 

বিভিন্ন ধরণের (নামজারী/রেকর্ড সংশোধন/মুদ্রন জনিত ভুল সংশোধন)

মিস কেসের ক্ষেত্রে করণীয় :

 

১। আবেদনপত্র আবশ্যিকভাবে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

২। আবেদনপত্রের সাথে সমুদয় কাগজপত্রের দুই সেট জমা দিতে হবে।

৩। আবেদনপত্রের ভিত্তিতে মিস কেস রুজু করে শুনানী গ্রহণঅন্তে মামলার আদেশ প্রদান করা হবে।

৪। শুনানীর সময় অবশ্যই সকল মূল দলিল উপস্থাপন করতে হবে।

৫। উক্ত মামলা নিষ্পত্তি করে নামজারীর জন্য কোন পুন:তদন্ত বা কাগজপত্র যাচাই বাছাই করা হবে না। বিধায় নির্ধারিত সময়ের অতিরিক্ত সময় ও অর্থ খরচের প্রয়োজনীয়তা নেই।

৬। সেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে প্রতিটি ধাপেই সরকারী নির্ধারিত মূল্যের বিপরীতে সেবা গ্রহীতাকে সরকারী রশিদ সরবরাহ করতে হবে।

*** স্বাক্ষর সম্বলিত কাগজপত্র।

*** আবেদনকারীর ছবি এক কপি।

*** নির্ধারিত কোর্ট ফি।

*** এস,এ/আর,এস খতিয়ানের কপি।

*** রেকর্ড হতে সর্বশেষ মালিকানা প্রমাণের ধারাবাহিক দলিলসমূহ।

*** ওয়ারিশ সনদ  পত্র (প্রয়োজ্য ক্ষেত্রে)

*** জাতীয় পরিচয় পত্রের অনুলিপি।

*** ভোটার তালিকা/ প্রাসংগিক প্রমাণসমূহ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)

 *** আবেদনকারীর এস,এ/আর,এস মূলে খারিজ করা থাকলে তার অনুলিপি অথবা যে খারিজ বাতিল/ সংশোধনের জন্য আবেদন হচ্ছে তার খতিয়ান কপি।

*** ইতোপূর্বে আদালতের আদেশ/ ডিক্রির অনুলিপিসমূহ।

*** যে দাগ বা নাম ভূল হয়েছে তা স্বপক্ষে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বা প্রমাণপত্র।

*** প্রয়োজন হাল/ সাবেক সূচীপত্রের আনুলিপি।